৫ জেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হবে, নদীবন্দরে ১ নম্বর সতর্কতা সংকেত জারি

 

আগামী ২৪ ঘন্টায় কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, জামালপুর, সিলেট এবং সুনামগঞ্জ জেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে।

অপরদিকে লালমনিরহাট ও নীলফামারী জেলার বন্যা পরিস্থিতি স্থিতিশীল থাকতে পারে।
এছাড়া দেশের সব নদী নদীসমূহের পানি সমতল বৃদ্ধি পাচ্ছে।যা আগামী তিনদিন পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

আগামী ২৪ ঘন্টায় যমুনা নদীর সারিয়াকান্দী ও কাজীপুর পয়েন্টে এবং ৪৮ ঘন্টায় সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে। আগামী ২৪/৪৮ ঘন্টায় উত্তর পূর্বাঞ্চলে কুশিয়ারা-সমেশ্বরী নদীর পানি সমতল বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে।

তিস্তা নদীর পানি সমতল আগামী ২৪ ঘন্টায় স্থিতিশীল ও বিপদসীমার নীচে অবস্থান করতে পারে। অপরদিকে ধরলা নদীর পানি সমতল বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে। অথবা স্থিতিশীল থাকতে পারে। এবং বিপদসীমার উপরে অবস্থান করতে পারে।

গত ২৪ ঘন্টায় দেশের মহেশখোলা ২৩১ মিলিমিটার, সুনামগঞ্জ ১৯০ মিলিমিটার, দূর্গাপুর ১৫১ মিলিমিটার, সিলেট ১১০ মিলিমিটার, কানাইঘাট ১০০ মিলিমিটার উল্লেখযোগ্য বৃষ্টিপাত হয়েছে।

দেশের পর্যবেক্ষণাধীন ১০১ টি পানি সমতল স্টেশনের মধ্যে ৭৮ টি স্টেশনের পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এর মধ্যে হ্রাস পেয়েছে ২৩ টি পানি সমতল স্টেশনের। বিপদসীমার উপরে ০৯ টি পানি সমতল স্টেশন।

এদিকে আজ ২৭ জুন বিকাল ৩ টা থেকে রাত ১ টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দর সমূহের জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, দিনাজপুর, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, সিলেট, ঢাকা, ফরিদপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, এবং কক্সবাজার অঞ্চল সমূহের উপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে

ঘন্টায় ৪৫-৬০ কি.মি. বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দর সমূহকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। খবর বাসস ।

 

Do NOT follow this link or you will be banned from the site!