স্বাস্থ্যখাত হবে ভারতের পরবর্তী আইটি সেক্টরঃ কিরণ মজুমদার শাহ্‌

 

বড় বড় শিল্প গোষ্ঠী এখন লড়াই করছে বেঁচে থাকার জন্য যেহেতু ভারত প্রস্তুত অর্থনীতির জন্য দরজা খুলে দিতে। এবার কর্মসংস্থান বাঁচাতে ভারতের প্রয়োজন অ্যাক্সিলারেটরে চাপ দিয়ে নীতি এবং নিয়ামকের সংস্কার করা। বায়োকনের চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর কিরণ মজুমদার শাহ এমনই অভিমত প্রকাশ করেছেন।

এই প্রসঙ্গে তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন, ভারতকে অগ্রাধিকার দিতে হবে সেইসব ক্ষেত্রকে যেখানে প্রচুর কর্মসংস্থান হবে।

তাদের মধ্যে অন্যতম হলো হেলথকেয়ার সেক্টর। তার বক্তব্য, হেলথকেয়ারের উপর স্পটলাইট পড়েছে। অবশেষে বিজ্ঞান এবং উদ্ভাবনীর উপর নজর ঘুরেছে। ভারতে পরবর্তীকালের আইটি সেক্টর হয়ে উঠতে পারে হেলথকেয়ার সেক্টর। সেখানে প্রচুর কর্মসংস্থানের সুযোগ থাকবে বলে তার অভিমত।

তিনি আরও জানান,হেলথকেয়ার সেক্টরে বিভিন্ন স্তরে একেবারে তৃণমূল স্তর থেকে রীতিমত পেশাগত টারশিয়ারি স্তরের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।

পাশাপাশি কিরণ মজুমদার শাহের বক্তব্য, এই হেলথকেয়ার সেক্টরই ভারতকে স্বনির্ভর উদ্দেশ্যে এগিয়ে যেতে একটা ভূমিকা নেবে- যেখানে অন্যান্যদের মধ্যে রয়েছে ফার্মাসিউটিক্যাল, বায়োফার্মা, মেডিকেল সাপ্লাইস এবং হাসপাতাল। তবে তথ্য প্রযুক্তির মতো নয়, এই ক্ষেত্রে একটা গর্ভকালের সময় থাকবে যা প্রায় দু’বছর।

তারপর থেকে বিনিয়োগের অর্থ ফেরত আসতে শুরু করবে। তাছাড়া এই ক্ষেত্রটিতে রফতানি করার একটা বিরাট সুযোগ রয়েছে। কিন্তু এই ক্ষেত্রেও সেই সব সুবিধা গুলি পাওয়া দরকার যেগুলি তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্র আগে পেয়ে এসেছে।

নিয়ামকের সংস্কার প্রসঙ্গে তার বক্তব্য, ব্যবসার জন্য ডিজিটাইজ জীবনটা সহজ করে দেবে। সকল কিছু এখন অনলাইনে মাধ্যমে শুরু করার একটা সুযোগ এসেছে যা অনেক লেনদেনের খরচ কমিয়ে দেবে।

সুযোগ এসেছে নিয়ামকে দ্রুত সংস্কার ঘটানোর। পাশাপাশি তিনি দারিদ্র, ক্ষুধা এবং অর্থনৈতিক ন্যায় সংক্রান্ত সমস্ত বিবৃতিকে গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করতে বলেছেন। সূত্র- কলকাতা ।

 

Karnaphuli News