সেনাবাহিনীর নিয়ন্ত্রণে গণপরিবহন চালুর দাবি যাত্রী কল্যাণ সমিতির

 

করোনা পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড সচল রাখার অংশ হিসেবে সেনাবাহিনীর নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সবধরনের গণপরিবহন চালুর দাবি করেছেন বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

২৮ মে, বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমের কাছে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনটির মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী এই আহ্বান জানান।

ওই বিবৃতিতে মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, অতীতের অভিজ্ঞতায় বলে আমাদের দেশের গণপরিবহনকে আইন মানানো এক কঠিন চ্যালেঞ্জ। দীর্ঘদিন বন্ধের কারণে আয় বঞ্চিত থাকায় পরিবহনের মালিক ও শ্রমিক ভাইয়েরা নিদারুণ আর্থিক সংকটে পতিত।

ফলে তাদের কাছে বেঁচে থাকায় এখন মূখ্য বিষয়। তাদের পক্ষে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করে পরিবহন পরিচালনা করা কতটুকু সম্ভব তা প্রশ্নবোধক।

আরো বলা হয়, অন্যদিকে সড়কে যারা বৈধ অবৈধ চাঁদাবাজি করেন তারা সক্রিয় হয়ে উঠবেন।

এমতাবস্থায় সরকারের পক্ষে পরিবহনের মালিক, শ্রমিক ও যাত্রী সাধারনের জন্য আরোপিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন পরিচালনা কঠিন চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে।

শঙ্কা প্রকাশ করে ওই বিবৃতিতে আরো বলা হয়, দেশে গণপরিবহনগুলো দৈনিক ইজারা ভিত্তিক চালানোর কারণে মালিক সমিতি, বাস শ্রমিক সংগঠনের নিয়ন্ত্রণের পরিবর্তে স্ব-স্ব গণপরিবহনের শ্রমিকের নিয়ন্ত্রণের পরিবহনগুলো পরিচালিত হয়।

এতে দেশের যাত্রী সাধারণ শঙ্কিত যে বাসে বাসে বেশি যাত্রী তোলা ও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের একটি অসম প্রতিযোগিতা তৈরি হতে পারে।

ওই বিবৃতিতে সুপারিশ করে বলা হয়, তাই করোনা সংক্রমণ বিস্তার রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন পরিচালনার দায়িত্ব সেনাবাহিনীর হাতে দিলেই কেবল সড়কে শৃঙ্খলা ও স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করা সম্ভব।