শিশু পাচারের অভিযোগে বৌদ্ধ ধর্মগুরু আটক

buddo

বান্দরবানে শিশুপাচারের অভিযোগে উ. স্বীরি নামে এক বৌদ্ধ ভান্তেকে (ধর্মীয় গুরু) আটক করেছে পুলিশ।
পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোয়াংছড়ি থানা পুলিশের একটি দল শুক্রবার সন্ধ্যায় রাঙ্গামাটির কাপ্তাই উপজেলার বড়ইছড়ি এলাকার মিতিংঙ্গাছড়ি বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ উ. স্বীরি ভান্তেকে (৩৬) আটক করা হয়। আটকৃত বৌদ্ধ ভান্তে মিয়ানমার নাগরিক।
রোয়াংছড়ি থানার এসআই মো. গোলাম মোস্তফা জানান, আটককৃত মিতিংঙ্গাছড়ি বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ উ. স্বীরি ভান্তে গত জানুয়ারি মাসে রোয়াংছড়ি উপজেলার তারাছা ইউনিয়নের তালুকদার পাড়াসহ বেশ কয়েকটি উপজাতীয় পাড়া থেকে ১৫/১৬ জন ১৪ থেকে ১৫ বছর বয়সী কিশোরীকে বিনা খরচে তার আশ্রমে রেখে পড়ালেখার করানোর প্রলোভন দেখিয়ে মিতিংঙ্গাছড়ি বৌদ্ধ বিহারে নিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে তাদের মিয়ানমারে পাচার করেন।
এ ঘটনায় পাইনুচিং মার্মা নামে এক ছাত্রীর অভিবাবক ওই বৌদ্ধ ভিক্ষুর বিরুদ্ধে মানবপাচারের অভিযোগে রোয়াংছড়ি থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ উক্ত মামলায় অভিযুক্ত বৌদ্ধ ভান্তেকে আটক করে।
মামলার বাদী মংপ্রুহ্লা মার্মা জানান, গত জানুয়ারি মাসে বৌদ্ধ ভান্তে পরিচয় দিয়ে উ. স্বীরি নামে এক লোক আমার মেয়ে পাইনুচিং মার্মাকে (১৪) মিতিংঙ্গাছড়ি বৌদ্ধ বিহারে বিনা খরচে পড়ালেখা করানোর প্রস্তাব দেন। আমি গরিব লোক এবং বিনা খরচে মেয়ের পড়ালেখার দিক বিবেচনা করে তার কথায় রাজি হয়ে মেয়েকে তার হাতে তুলে দেই। কয়েকদিন পর আমার মেয়েকে দেখতে মিতিংঙ্গাছড়ি বৌদ্ধ বিহারে যাই। সেখানে আমার মেয়েকে দেখতে পাইনি। এমনকী উ. স্বীরি ভান্তে আমার মেয়ের সঙ্গে দেখা করার ব্যাপারে কোনো সহযোগিতা করেননি। পরে আমি জানতে পারি আমার মেয়েসহ আরো ১৫/১৬ জন মেয়েকে মিয়ানমারে পাচার করে দিয়েছে এই বৌদ্ধ ভান্তে।