মাদ্রাসাছাত্র নিহতের জেরে বুধবার সারা দেশে হরতাল

HORTAL

কর্ণফুলী নিউজঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের টি এ রোডে মাদ্রাসাছাত্রদের সঙ্গে ত্রিমুখী সংঘর্ষের জেরে একজন নিহত বুধবার সারা দেশে হরতালের ডাক। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে মাদ্রাসাছাত্রদের সঙ্গে ব্যবসায়ী ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে আহত একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম হাফেজ মাসুদুর রহমান। মঙ্গলবার ভোররাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। নিহত ছাত্র শহরের জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুসিয়া মাদ্রাসার (বড় মাদ্রাসা) শিক্ষার্থী। তার গ্রামের বাড়ি নবীনগর উপজেলার সামন্তঘর গ্রামে।

সে শহরে থেকেই মাদ্রাসায় পড়াশোনা করত বলে পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন। তার লাশ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।
পুলিশের গুলিতে তার মৃত্যু হয়েছে বলে নিহত মাদ্রাসাছাত্র হাফেজ মাসুদুর রহমানের ভাই হাফেজ মোহাম্মদ মামুন ও সহপাঠী মুফতি নিয়ামুল ইসলাম অভিযোগ করেছেন।তবে এ ব্যাপারে এখনো পুলিশের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, মাদ্রাসাছাত্রের সঙ্গে জেলা পরিষদ মার্কেটের বিজয় টেলিকমের মালিক রনি মিয়ার বাকবিতণ্ডার পর কয়েকশ ছাত্র জেলা পরিষদ মার্কেটে গিয়ে রনির মালিকানাধীন বিজয় টেলিকমসহ একাধিক দোকানে হামলা চালায় এবং ভাঙচুর করে। এর পর ব্যবসায়ীরা মাদ্রাসাছাত্রদের ধাওয়া করলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা  এবং অন্যদিকে মাদ্রাসাছাত্রদের সঙ্গে  কান্দিপাড়া এলাকাবাসী যোগ দিলে সংঘর্ষ মারাত্মক আকার ধারণ করে। ।

এদিকে সংঘর্ষে মাদ্রাসাছাত্রের নিহত হবার ঘটনায় বুধবার সারা দেশে হরতালের ডাক দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে শহরের জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুসিয়া মাদ্রাসার জ্যেষ্ঠ শিক্ষকদের পক্ষে মাওলানা মোবারক উল্লাহ এ হরতালের ঘোষণা দেন।

এ সময় তিনি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, মাদ্রাসাছাত্র নিহত ও মাদ্রাসায় হামলার প্রতিবাদ, সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) তাপস রঞ্জন বোস, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকূল চন্দ্র বিশ্বাসের অপসারণ ও নিহত মাদ্রাসাছাত্রের নিহতের ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবিতে আগামীকাল বুধবার সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা তৌহিদী জনতার ব্যানারে হরতাল পালিত হবে।