নির্বাচনি সংঘর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নিহত

ঢাবি

মাদারীপুর সদর উপজেলার ধুরাইল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ফলাফলকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট সংঘর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক ছাত্র নিহত হয়েছেন। নিহত সুজন মৃধা (২২) মার্কেটিং বিভাগের ছাত্র। তিনি বেসরকারিভাবে ইউপি বিজয়ী সদস্য প্রার্থী মোতালেব মৃধার নাতি।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এই ঘটনা ঘটে। নিহতের পরিবারের অভিযোগ পুলিশের গুলিতে সুজনের মৃত্যু হয়েছে।
মাদারীপুর পুলিশ সুপার সরোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের সুজন মৃধার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংর্ঘষ হয়। সেখান থেকে দেশি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ কোনও গুলি ছোঁড়েনি। কিভাবে ছেলেটি মারা গেছে তা তদন্ত না করে বলা যাচ্ছে না।
মাদারীপুর সদর থানা পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা  জানায়, ধুরাইল ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ বিরঙ্গল মাদ্রাসা কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণা করার সময় দুই মেম্বার প্রার্থী আব্দুল মোতালেব মৃধা ও আয়ুবালী ফকিরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।
মোতালেব মৃধা বলেন, নির্বাচনে আমি বিজয়ী হই। আমার ভোট কারচুপি করে আয়ুবালীর সমর্থকরা জয় ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। পুলিশ আমার সমর্থকদের ওপর হামলা চালায়। পুলিশের গুলিতে আমার নাতি মারা গেছে।
মাদারীপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক অখিল সরকার বলেন, সুজনের গলায় গভীর ক্ষত রয়েছে। আঘাতটি গুলির মনে হচ্ছে।