ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুরকে গণপিটুনি

 

gangrape_92701

পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে আজগর আলী (৪৫) নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়েছে গ্রামবাসী। গুরুতর আহতাবস্থায় আজগরকে পুলিশি প্রহরায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কোতয়ালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এসএম শামিম আক্তার বলেন, গ্রামবাসী এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে বলে খবর পেয়ে সন্ধ্যায় ফোর্স নিয়ে সদর উপজেলার এড়েন্দা গ্রামে যাই। সেখান থেকে আজগর আলী নামে ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করি। তিনি জানান, আলমসাধু চালক আজগরের স্ত্রী দুই মাস আগে চাকরি নিয়ে ওমান চলে গেছেন। তার বড় ছেলে মিলন হোসেন খুলনায় রাজমিস্ত্রির কাজ করেন। মিলনের স্ত্রী (২০) সদর উপজেলার এড়েন্দা গ্রামে শ্বশুরবাড়িতেই থাকতেন। গত ৪ আগস্ট রাত ১০ টার দিকে বাড়িতে অন্য কেউ না থাকায় আজগর তার পুত্রবধূকে (মিলনের স্ত্রী) ধর্ষণ করে। ক্ষোভে-লজ্জায় পরদিন সকালে ধর্ষিতা পুত্রবধূ বাবার বাড়ি ঝিকরগাছা উপজেলার বোধখানা গ্রামে চলে যান। এ খবর গ্রামে ছড়িয়ে পড়লে আজগর রোববার বিকেলে বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় ছোট ছেলে সুমন তার বাবাকে আটকে পেটানো শুরু করে। খবর পেয়ে গ্রামের লোকজন এসে আজগরকে বেদম পেটায়। পরে পুলিশ গেলে গ্রামবাসী আজগরকে তাদের হাতে তুলে দেয়। আজগরের শ্যালক আফজাল হোসেন ও গ্রামের ইউপি মেম্বার মতিয়ার রহমান জানান, ধর্ষণের ঘটনা সত্য। সোমবার ধর্ষিতার পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়া হবে। কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিকদার আক্কাছ আলী বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে আজগরের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।