দক্ষিণ সুদানে কন্টেইনারে আটকে ৬০ জনকে হত্যা

 

দক্ষিণ সুদানে ৬০ জনেরও বেশি পুরুষকে জাহাজের কন্টেইনারে বন্দী করে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে সরকার। পরে এসব মৃতদেহ লির টাউন নামে একটি শহরে পুঁতে ফেলা হয়েছে। মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল এ অভিযোগ করেছে। শুক্রবার বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। এদিকে পৃথক প্রতিবেদনে জাতিসংঘও অভিযোগ করেছে, সরকারি সেনারা ইচ্ছাকৃতভাবে বেসামরিক নাগরিকদের হত্যা ও ধর্ষণ করছে।   অ্যামনেস্টির গবেষকরা জানিয়েছেন, গত বছর অক্টোবরে সরকারি সেনারা একটি কন্টেইনারে ৬০ জনেরও বেশি পুরুষকে বন্দী করে রাখে। পরে  সেখানে দমবন্ধ হয়ে এসব হতভাগ্য লোকের মৃত্যু হয়। অ্যামনেস্টির দাবি, তারা এসব নিহতদের দেহাবশেষ খুঁজে পেয়েছেন।   প্রতিবেদনটি তৈরি করতে অ্যামনেস্টি ৪২ জন প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষ্য নিয়েছে। এদের মধ্যে ২৩ জনই দাবি করেছে, তারা হতভাগ্য ওই সব পুরুষদের জোর করে জাহাজের কন্টেইনারে প্রবেশ করাতে দেখেছে। পরে তাদের মৃতদেহ ওই কন্টেইনার থেকে বের করতেও তারা দেখেছে।   এসব প্রত্যক্ষদর্শী আরো জানিয়েছেন, তারা কন্টেইনারে বন্দী ওই সব লোকদের আর্তচিৎকার ও কন্টেইনারে আঘাতের শব্দ শুনতে পেয়েছেন।হত্যাকাণ্ডের শিকার লোকদের স্বজনরা জানিয়েছেন, এরা সবাই ছিল রাখাল, ব্যবসায়ী ও ছাত্র। এরা কেউই যোদ্ধা ছিল না।   তবে দক্ষিণ সুদানের সরকার অ্যামনেস্টির এ অভিযোগ প্রত্যাখান করেছে।   প্রসঙ্গত, গৃহযুদ্ধের কারণে ২০১৩ সাল থেকে দক্ষিণ সুদানের লাখ লাখ লোক গৃহহীন হয়ে পড়েছে। সরকারি বাহিনী ও বিদ্রোহীদের সংঘর্ষের জেরে মারা গেছে হাজার হাজার মানুষ।