তাসকিনকে ছাড়াই কলকাতায় গেল বাংলাদেশ

image

দলের নির্ভরযোগ্য পেসার তাসকিন আহমেদকে ছাড়াই বিশ্বকাপ অভিযানে শহরে পা রাখল এশিয়া কাপ রানার্স বাংলাদেশ।

সোমবার সন্ধেয় কলকাতায় পা দিয়েই বাংলাদেশ টিমের মিডিয়া ম্যানেজার খালেদ মেহমুদ সুজন বলে দেন, ‘‘চেন্নাইয়ে আইসিসি অনুমোদিত পরীক্ষাগারে বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষা দিতে গিয়েছে তাসকিন। তাই এ দিন দলের সঙ্গে আসেননি। মঙ্গলবার সন্ধেয় টিমের সঙ্গে যোগ দেবে তাসকিন।’’

 তবে সন্দেহজনক বোলিং অ্যাকশনের দায়ে অভিযুক্ত বাংলাদেশের আর এক বোলার বাঁ হাতি স্পিনার আরাফত সানি ইতিমধ্যেই চেন্নাইয়ের রামচন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই পরীক্ষা দিয়ে এ দিন দলের সঙ্গে কলকাতায় এসেছেন।

টিমের দুই নির্ভরয়োগ্য বোলারের উপর আচমকা আইসিসি-র বোলিং অ্যাকশন খতিয়ে দেখার নির্দেশে চাপ বেড়েছে বাংলাদেশের উপর।  বাংলাদেশের শেষ দুই ম্যাচে বল হাতে তাসকিন বেশ ছন্দে ছিলেন। রবিবারও ধর্মশালায় ওমানকে  হারিয়ে সুপার টেনের টিকিট পাওয়ার ম্যাচে দু’ভার বল করে এক উইকেট নেন এই পেসার। তার পর এ দিন সকালেই রওনা দেন চেন্নাইয়ের উদ্দেশ্যে।

তাসকিন ও সানির বোলিং অ্যাকশন অবৈধ বলে আইসিসি রিপোর্ট দিলে, তা সামলানোর জন্য নির্বাচকরা ইতিমধ্যেই বিকল্প তৈরি রেখেছেন। শোনা যাচ্ছে, তাসকিনের বিকল্প হিসেবে দুই পেসার কামরুল ইসলাম ও মহম্মদ শাহিদকে তৈরি থাকতে বলা হয়েছে। সে ভাবেই সানির বিকল্প হিসেবে মোশারফ হোসেন, সানজামুল ইসলাম এবং সাকলিন সাজিবকে ইতিমধ্যেই নাকি তলব করা হয়েছে। অভিযুক্ত দুই বোলারের অ্যাকশন অবৈধ হলে এঁদের মধ্যে থেকেই কাউকে বেছে নেওয়া হবে। আপাতত খবর সে রকমই।

তাসকিনদের সম্পর্কে বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের মিডিয়া ম্যানেজার খালেদ মেহমুদ সুজন বলেন, ‘‘আমরা আশাবাদী যে তাসকিনদের রিপোর্ট পজিটিভ থাকবে।’’ একই সঙ্গে এ দিন তিনি জানিয়ে দেন, ধীরে ধীরে সুস্থ হচ্ছে বাংলাদেশের আর এক জোরে বোলার মুস্তাফিজুর রহমান। বাংলাদেশে মিডিয়া ম্যানেজারের দাবি, ‘‘আশা করছি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচের আগেই ফিট হয়ে যাবে মুস্তাফিজুর। তবে এ ব্যাপারে শেষ কথা বলবেন টিমের ফিজিও।’’

ধর্মশালা থেকে দিল্লি হয়ে এ দিন সন্ধে সাতটায় কলকাতায় নামে বাংলাদেশ টিমের উড়ান। তবে টিমের সঙ্গে লাগেজ আসেনি সাকিব আল হাসানদের। সোমবার গভীর রাতে তা আসবে বলে জানান স্থানীয় ম্যানেজার পৃথ্বীশ বন্দ্যোপাধ্যায়। বিমানবন্দর থেকে বাংলাদেশ টিমকে নিয়ে তোলা হয় বাইপাসের ধারের এক অভিজাত হোটেলে।

১৯৯০ সালের ৩১ ডিসেম্বর ইডেনে প্রথম ও শেষ বার খেলেছিল বাংলাদেশে। এশিয়া কাপের সেই ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে যদিও হারতে হয়েছিল বাংলাদেশকে। আড়াই দশক পর বুধবার ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টির সুপার টেন-এর ম্যাচে ফের ইডেনে নামবেন সৌম্য সরকাররা। যদিও আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে ইডেনে খেলে গিয়েছেন সাকিব, মাশরাফিরা। বুধবার বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ পাকিস্তান। যাদের সদ্য সমাপ্ত এশিয়া কাপে হারিয়েছে বাংলাদেশ।