‘জঙ্গি’ ছেলেকে নিয়ে কথা বলেছেন আ.লীগ নেতা আজিজুল !

 jongi sabbir

আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুল হক চৌধুরীর  ছেলে গতকাল কল্যাণপুরে নিহত ‘জঙ্গি’ সাব্বির বিপথগামী হয়েছিলেনএ কথা তিনি জানতেন।তবে আইনি ঝামেলা এড়ানোর পাশাপাশি মানসম্মানের ভয়ে থানায় জিডি পর্যন্ত করেননি বলে জানিয়েছেন তার পরিবারে একজন।

সাব্বিরের ঘনিষ্ট ওই ব্যক্তি বলেন, ‘নিজের ছেলে বিপথগামী হয়েছে এ খবর পেয়েও আইনি ঝামেলা এড়ানোর পাশাপাশি মানসম্মানের ভয়ে থানায় জিডি পর্যন্ত করেননি আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুল হক চৌধুরী। এখন নিজের ছেলের লাশ নিহত জঙ্গিদের দলে দেখেও চাপা কান্না আসলেও কাউকে কিছুই বলতে পারছেন না তিনি।’

সোমবার পুলিশের অভিযানে কল্যাণপুরে নিহতদের প্রকাশিত ছবি দেখে একজনকে ‘শনাক্ত’ করেন স্থানীয়রা। তিনি চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার বরুমচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আজিজুল হক চৌধুরীর ছেলে সাব্বিরুল হক কণিক (২২) বলে ধারণা করছেন তার স্বজন ও পুলিশ।

এদিকে সাব্বিরের বাবা আরও বলেন, ‘পুলিশি হয়রানি এড়াতে রীতিমত তাকে আত্মগোপনেই থাকতে হচ্ছে। তবে সাব্বিরুলের মা এখনো বিশ্বাস করতে চাইছেন না নিহতদের মধ্যে তার ছেলেও আছেন।’

সাব্বিরুলেন বাবা আজিজুল হক সপরিবারে চট্টগ্রাম শহরের রাহাত্তার পুল এলাকায় বাস করেন। সম্প্রতি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের চাকরি থেকে অবসর নিয়েছেন তিনি। তার বড় ভাই মোজাম্মেল হক চৌধুরী একজন মুক্তিযোদ্ধা। তারা পারিবারিকভাবেই আওয়ামী রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত।

বাকলিয়া থানার ওসি আবুল মনসুর বলেন, ‘কল্যাণ পুরে নিহত ৯ জঙ্গির মধ্যে সাব্বির নামে একজনের পরিবার রাহাত্তারপুল এলাকায় থাকতেন। খবর পেয়ে তার বাসায় আসলেও বাসা তালা লাগিয়ে তারা কোথাও চলে গেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখছি আমরা।’

আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ গতকাল মঙ্গলবার গভীর রাতে সাব্বিরুলের গ্রামের বাড়িতে বরুমচড়ায় গেলেও সেখানে তাদের পাননি। আর নগরীর বাকলিয়া থানার ওসি আবুল মনসুর রাহাত্তারপুলের ভাড়া বাসায় বুধবার দুপুরে গেলে সেখানেও বাসা তালাবদ্ধ পেয়েছেন।