চট্টগ্রামে আ’লীগ কার্যালয়ে মনোনয়ন বঞ্চিতদের হামলা, পুলিশসহ আহত ১৫

স্কুলে বিয়ে অনুষ্ঠানের অনুমতি না দেওয়ায় প্রধান শিক্ষককে প্রাণনাশের হুমকি, যুবদল নেতা গ্রেপ্তার

 

চট্টগ্রাম মহানগরীর লালদীঘির মোড়ে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে হামলা চালিয়েছে মনোনয়ন বঞ্চিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর অনুসারীরা। একইসঙ্গে তারা পুলিশের ওপরও হামলা চালিয়েছে। এ সংঘর্ষে দুই পুলিশ সদস্যসহ কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আন্দরকিল্লা আওয়ামী লীগ দক্ষিণ জেলা কার্যালয়ে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহত দুই পুলিশ সদস্য হলেন কোতোয়ালী থানার এসআই বদরুদ্দোজা ও কনস্টেবল তুহিন। আহতদের আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, হামলায় আনোয়ারা ও কর্ণফুলী উপজেলার চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন বঞ্চিতদের অনুসারীরা জড়িত। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ২২ রাউন্ড টিয়ার সেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ সময় পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। এলাকার দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।

জানা যায়, শুক্রবার সকালে আনোয়ারা ও কর্ণফুলী উপজেলার ইউনিয়ন পষিদের চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নিয়ে একটি বৈঠকের কথা ছিল। সংঘর্ষের আশংকায় বৈঠকটি স্থগিত করা হয়। তারপরও আনোয়ারা ও কর্ণফুলী উপজেলার প্রায় এক হাজার নেতাকর্মী কার্যালয়ে প্রবেশের চেষ্টা করে।

এতে পুলিশ বাধা দেয়। এসময় পুলিশের সঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। হামলাকারীরা অফিসের ভেতরে টেবিল চেয়ারসহ অন্যান্য আসবাবপত্র ভাংচুর করে।

এ সময় পুলিশ টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ কর্মীরা পুলিশের ওপর বৃষ্টির মত ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে।

কোতোয়ালি থানার ওসি জসিম উদ্দিন জানান, মনোনয়ন বঞ্চিত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের অনুসারীরা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে হামলা ও ভাঙচুর করেছে। পুলিশ টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে তাদের সরিয়ে দিয়েছে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।