চট্টগ্রামে ‘অজ্ঞান পার্টির’ ৬ সদস্য গ্রেফতার

চট্টগ্রামের ২ টি উপজেলাকে সবুজ জোন ও ৩ টি উপজেলাকে হলুদ জোন ঘোষণা

 

চট্টগ্রামের দুটি উপজেলাকে সবুজ জোন ঘোষণা করা হয়েছে । সেই সাথে আরও তিনটি উপজেলাকে হলুদ জোন ঘোষণা করা হয়েছে ।

সবুজ জোনে থাকা দু’টি উপজেলা হলো, সন্দ্বীপ ও মিরসরাই ।

অন্যদিকে হলুদ জোনের তিন উপজেলা হচ্ছে, ফটিকছড়ি, লোহাগাড়া ও সাতকানিয়া।

সবুজ জোন ও হলুদ জোন এলাকায় সংক্রমণ রেড জোনের তুলনায় কম হওয়ায় সেখানে লকডাউন হচ্ছেনা । তবে ঘোষণাকৃত রেড জোন উপজেলা গুলোতে লকডাউনের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে ।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি সোমবার এই তথ্য নিশ্চিত করেন ।

এছাড়াও গতকাল চট্টগ্রামের ৯ টি উপজেলাকে রেড জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয় । রেড-জোনের আওতাধীন উপজেলাগুলো হচ্ছে আনোয়ারা, বাঁশখালী, বোয়ালখালী, চন্দনাইশ, পটিয়া, রাঙ্গুনিয়া, রাউজান, সীতাকুন্ড ও হাটহাজারী।

সরকারি প্রজ্ঞাপন অনুযায়ি লকডাউন চলাকালীন চিহ্নিত এলাকায় সরকারি আধাসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সাধারণ ছুটির আওতায় থাকবে।

লকডাউন চলার সময়ে চিহ্নিত ওয়ার্ডে যানবাহন, মানুষের চলাচল ও দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। এছাড়া প্রত্যেক মানুষকে অবশ্যই ঘরে থাকতে হবে।

সিভিল সার্জন জানান, লকডাউন চলাকালীন এলাকার অধিবাসীরা নিজের এলাকায় থাকবেন এবং বাইরের কেউ নিজেদের এলাকায় প্রবেশ করতে পারবেন না। যারা ঘরে আবদ্ধ থাকবেন তাদের প্রয়োজন ও চাহিদা পূরণের জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ স্থাপন করা হবে।

এ নিয়ন্ত্রণ কক্ষের নির্দিষ্ট টেলিফোন নম্বরে এলাকাবাসীর চাহিদা মোতাবেক ন্যায্য বাজারমূল্যে খাদ্য, ওষুধপত্রসহ দৈনন্দিন স্বাভাবিক জীবন যাপনের সকল উপকরণ ঘরে-ঘরে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা থাকবে।

যারা হতদরিদ্র তাদের অবস্থার কথা বিবেচনা করে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হবে।

 

Do NOT follow this link or you will be banned from the site!