গণপরিবহনের ভাড়া ৮০ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ করেছে বিআরটিএ

সোমবার সকাল থেকেই বন্ধ হচ্ছে গণপরিবহন

 

করোনা পরিস্থিতির সময় গণপরিবহনের ৮০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর সুপারিশ করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের নির্দেশনা থাকায় ভাড়া বাড়ানোর এই সুপারিশ করে তারা।

৩০ মে শনিবার, সকালে সংস্থাটির ভাড়া সমন্বয় বিষয়ক কমিটি এক বৈঠকে এই সুপারিশ করে। সুপারিশগুলো লিখিতভাবে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

মো. ইউছুব আলী মোল্লা গণমাধ্যমে বলেন, ‘আগামীকাল অর্থাৎ ৩১ মে থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরিবহন পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরিবহনগুলোকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে একটি করে সিট ফাঁকা রেখে যাত্রী পরিবহন করতে হবে। অর্থাৎ যেখানে ৫০ সিট রয়েছে সেখানে ২৫ জন যাত্রী পরিবহন করবে। এতে যাত্রী সংখ্যা অর্ধেকে নেমে আসবে।

এক্ষেত্রে যাত্রী সংখ্যা কমলেও পরিবহন ব্যয় কিন্তু একই থেকে যাচ্ছে। আর এই খরচটা কিন্তু কাউকে না কাউকে বহন করতেই হবে। তা না হলে পরিবহন চালানো যাবে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘পরিবহন মালিকদের দাবি ছিল যাত্রী সংখ্যা যেহেতু কমছে তাই ভাড়া ১০০ ভাগ বাড়ানোর জন্য। আমরা সেটা না করে ৮০ ভাগ ভাড়া বাড়ানোর সুপারিশ করেছি।

এই ভাড়া সব ধরনের পরিবহনের জন্য প্রযোজ্য হবে। সরকার যদি এটি কার্যকর করে তাহলে পরিবহনগুলোকে তাদের পূর্বে ভাড়ার যে দর ছিল সেই দর থেকে ৮০ ভাগ বাড়াবে।’

এর আগে গত ২৮ মার্চ দেশের করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সহযোগিতার জন্য আট জন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞকে দায়িত্ব দেয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।

এরই মধ্যে সেই কমিটি গণপরিবহন পরিচালনার জন্য বেশ কিছু কারিগরি নির্দেশনা তৈরি করেছে। খবর বাংলাট্রিবিউন।