কেমোথেরাপি দিতে যাওয়ার পথে টাঙ্গাইলে চট্টগ্রামের ৩ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু

কেমোথেরাপি দিতে যাওয়ার পথে টাঙ্গাইলে চট্টগ্রামের ৩ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু

 

ক্যান্সারে আক্রান্ত বোনকে কেমোথেরাপি দিতে গিয়ে টাঙ্গাইলে মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন চট্টগ্রামের আপন দুই বোন ও এক কন্যা শিশু।

আজ শনিবার (৩ জুলাই) সকাল ৭টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মারা যাওয়া ৩ জন হলেন ক্যান্সার আক্রান্ত ফরিদা বেগম (৩৭), তার বোন ফেরদৌসী বেগম (৪৫) ও ফরিদার ছোট মেয়ে মারিয়া (১৬)। ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে বিপরীতমুখী একটি পিকআপভ্যানের ধাক্কায় অ্যাম্বুল্যান্সটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়।

ফরিদা ও ফেরদৌসী বেগম নগরীর ইপিজেড থানাধীন জবু ফকিরের বাড়ির নজির আহমদের মেয়ে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নিহতের ভাগিনা নাসির ইসলাম।

তিনি বলেন, “শুক্রবার রাত ১২টার দিকে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে কেমোথেরাপি দিতে আমার মামি ফরিদা বেগম তার সিডিএ ১ নম্বর সড়কের বাসা থেকে বোন আর বোনের মেয়ে মারিয়াকে নিয়ে সিরাজগঞ্জ ক্যান্সার হাসপাতালের উদ্দেশে রওনা দেন।

অ্যাম্বুলেন্সটি আজ সকাল ৭টার দিকে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার হাতিয়া এলাকায় পৌঁছালে বিপরীতমুখী পিকআপভ্যানের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে অ্যাম্বুলেন্স চালকসহ চারজন নিহত হন।”

এ ব্যাপারে বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শহিদুল ইসলাম বলেন, “এ দুর্ঘটনায় অ্যাম্বুলেন্সের চালকসহ ৪জন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত হয়েছেন আরও সাতজন। হতাহতদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।” খবর আজাদী ।

 

Karnaphuli News